অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী আমার এক বন্ধুর সকালে মেডিটেশনে দিন শুরু হয়।

মেডিটেশন করে সুরা ফাতিহা দিয়ে । মজার ব্যাপার হচ্ছে সে কিন্তু মুসলিম না, বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী । আর যে তাকে এটা শিখিয়েছে সে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী ।

আমার কৌতুহল বেড়ে গেল । নেট ঘেটে দেখলাম Anxiety আর Stress release এর জন্য এই সুরা মহৌষধ । আফসোস এত দিনে জানলাম ।

কলেজ লাইফে ঢাকার কোন ওপেন এয়ার কনসার্ট বাদ যায়নি । সেই ১৯৯২ থেকে ব্যান্ড ভক্ত ছিলাম । টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে পয়ত্রিশ টাকা দিয়ে ফিতার ক্যাসেট কিনতাম । ক্যাসেটের দুই পাশে মিলিয়ে বার বা চৌদ্দটা গান । ভার্সিটির হল লাইফে কত রাত কেটেছিল বাচ্চু, হাসান, জেমস আর পার্থকে নিয়ে ।

আফসোস !!!

পাকিস্তানের এক সময়ের বিখ্যাত ব্যান্ড সিঙ্গার জুনায়েদ জামশেদ এর বদলে যাওয়ার ঘটনা ।

মজসিদে অনেক লোকের মাঝে দারস দিচ্ছিলেন মাওলানা তারিক জামিল । তিনি খেয়াল করলেন চাদরে মুখ ঢাকা এক যুবক দূরে দাঁড়িয়ে ইতস্তত চোখে তাকিয়ে আছে । কিছু যেন বলতে এসেছে ।

-কি কর তুমি ?
মিউজিকের সাথে আছি ।

-গান গাও নাকি বাজনা বাজাও ?
আমিই ভোকাল – গান গাই ?

-আমি তোমার জন্য কি করতে পারি ?
আমার অনেক খ্যাতি । একটা যুবক যা স্বপ্ন দেখে আমি তার সবই পেয়েছি- সবই আমার বাস্তব । সব পেয়েছি শুধু এ জায়গাটা ফাঁকা (বুকের দিকে ইশারা করে )।

মাওলানা তারিক জামিল নিজেই বললেন এ ঘটনা এই তো সেদিন।

জুনায়েদ জামশেদ আর নেই । সেই সময়ের কোটি তরুনের প্রিয় গায়ক মিউজিক ছেড়ে দিয়ে আল্লাহর পথে মানুষকে ডাকতে ডাকতে চলে গেলেন রবের সান্নিধ্যে ।

ভারতের নায়ক শাহরুখ খান এক সাক্ষাৎকারে বলেছিল, তার একাকিত্বটা সে শূন্যতা দিয়ে পালন করে। তার মনে হয় কি যেন নেই।

আবার জনপ্রিয় কৌতুক অনুষ্ঠান মিরাক্কেল আক্কেল প্রোগ্রামের এন্টারটেনমেন্ট দেনেওয়ালা মীর, সেও ঘুমের ওষুধ খেয়েছিলো ক’মাস আগে হতাশা আর শূন্যতা থেকে বাচঁতে। অথচ মানুষ স্ট্রেস দূর করতে একটু হাসতে টিভিতে তার প্রোগ্রাম দেখে ।

বিখ্যাত ইংলিশ গায়িকা এডেল এক সাক্ষাতকারে বলেছিল ” পপুলারিটি আমার কাছে বিষাক্ত লাগে। আমি ভেতরকার শুন্যতা কেউ দেখে না। প্রচন্ড একা আমি দিন শেষে ।”

জেনিফার লরেন্স হাঙ্গার গেমস এর জনক । এত নাম এত টাকা থাকা সত্ত্বেও প্রতি মাসে দুইবার ডাক্তারের কাছে যান বুকের শুন্যতা দূর করার জন্য ।

পৃথিবী হাসানো কমেডি অভিনেতা রবিন উইলিয়ামস। সারা জীবন মানুষ কে হাসিয়ে গেছেন। কেউ জানত না ভেতরে ভেতরে রবিন খুব একা। সেই রবিন উইলিয়ামস আত্নহত্যা করলো বেল্টের সাথে ঝুলে ।

গুড উইল হান্টিং এর প্রফেসর কে ডিপ্রেশন থেকে বের করার কোন প্রফেসার তার পাশে ছিলনা।

মনের অশান্তির চেয়ে বড় কোন রোগ নাই ।
মানুষ মনের শান্তির জন্য পেরেশান । আর সে শান্তি হাতের নাগালেই । নামাজের চেয়ে বড় কোন মেডিটেশন নাই । বুকের শূন্যতা পূরণে কোরআনের চেয়ে বড় কোন ঔষধ নাই ।

বিশ্বাস করুন, কোরানের চেয়ে শ্রুতিমধুর ছন্দময় হ্রদয় কেড়ে নেয়া সঙ্গীত আর কিছু নাই। অাল্লাহু আকবার।

দুই জগতে বিচরণ করা মানুষগুলো এই সত্যটা টের পাবে-যদি সে সত্যের সন্ধান পায় ।

একটা গান যতই প্রিয় হোক, শুনতে শুনতে তেতো হয়ে যায় ।

অথচ নামাজে মজা পাওয়া মানুষগুলোই জানে প্রতিদিন বার বার সুরা ফাতিহা পড়ে কত মজা !

সুবহানাল্লাহ্।
আলহামদুলিল্লাহ্।

কোন নির্জন রাতে কানে হেড ফোন লাগিয়ে ক্বারী আব্দুল বাসিতের সুরে আদ দোহা । বসির দুরাকোর সুরে সুরা বাকারার শেষ দুই আয়াত । অথবা ইমাম ফয়সালের সুরে সুরা মুলক ।কতজনের নাম বলবো ! আর এর অনুভুতি কিভাবে বলে বুঝাবো ?

ফিলিস্তিনের ইমাম ঘাসসান শোরবাজির কন্ঠে সুরা হাশরের ১৮-২৪ আয়াত। ইউটিউবে ছেড়ে দিবেন বাংলা ডাবিং সহ । হানি আর রিফাই এর সুরে সুরা ফজর। হিশাম আল আরাবীর সুরে ইনসান।সুমধুর সুরে বড় দরদ দিয়ে তেলাওয়াত করতে করতে কান্নায় ভেঙে পড়া …।

আপনি যত পাষাণ হোন আর যে ধর্মেরই হোন । আপনার মনে যত অশান্তিই থাকুক, একটু শুনে আসবেন ।

কান্নায় যে কত মজা ! কিছু মানুষ ইচ্ছে করে কাঁদতে বসে।
কাঁদতে না পারলে বড় কষ্ট লাগে।

মহান আল্লাহ যেন আমাদের সঠিক বুঝ দান করেন, ক্ষমা করেন এবং সবসময় হেফাজত করেন।

জাযাকাল্লাহু খাইরান।

 

আইডিসির সাথে যোগ দিয়ে উভয় জাহানের জন্য ভালো কিছু করুন

 

আইডিসি এবং আইডিসি ফাউন্ডেশনের ব্যপারে বিস্তারিত জানতে  এই লিংক দুটি ( লিংক০১ ও লিংক০২ ) ভিজিট করুন।

আইডিসি  মাদরাসার ব্যপারে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

আপনি আইডিসি  মাদরাসার একজন স্থায়ী সদস্য /পার্টনার হতে চাইলে এই লিংক দেখুন.

আইডিসি এতীমখানা ও গোরাবা ফান্ডে দান করে  দুনিয়া এবং আখিরাতে সফলতা অর্জন করুন।

কুরআন হাদিসের আলোকে বিভিন্ন কঠিন রোগের চিকিৎসা করাতেআইডিসি ‘র সাথে যোগাযোগ করুন।

ইসলামিক বিষয়ে জানতে এবং জানাতে এই গ্রুপে জয়েন করুন।