বাচ্চাদের বদনযরের রুকইয়াহ শেষে। আমি ব্যাক্তিগতভাবে … বাচ্চাদের জন্য সবসময়; বিশেষ করে বদনযরের ট্রিটমেন্ট চলাকালীন, কয়েকটা বিষয় খেয়াল রাখতে বলি: যেমনঃ – কোনভাবেই যেন বিসমিল্লাহ ছাড়া খাবার না খায়। বাচ্চা বলতে না পারলে মা বলবে। – সন্ধ্যার সময় যেন কোনভাবেই ঘরের বাইরে না থাকে। – বাচ্চা কোন কারণে কাপড় নাপাক করলে; দ্রুত যেন পাল্টিয়ে দেয়া। – বাচ্চা যে ঘরে থাকে, সেখানে যেন কোনভাবেই ছবি না থাকে। – লম্বা সময় খালি সম্পূর্ণ গায়ে না রাখা। – স্পষ্ট চেহারাওয়ালা হাই রেজুলেশন পিক সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার না করা। – আশপাশ থেকে হাদিয়া পাওয়া খাবার জাতীয় কিছু হুট করেই বাচ্চাকে না খাওয়ানো। – দুধের বাচ্চাদের বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় পারতপক্ষে জানালার পাশে না বসা। . শুধু বাচ্চাদের বাবারা না ভবিষ্যত বাবারাও মনে রাইখেন। পারলে নোট করে রাখেন। এগুলো যেকোন একটা ইস্যুতে গাফলতির ফলে আপনার বাচ্চা আক্রান্ত হতে পারে।  

আইডিসির সাথে যোগ দিয়ে উভয় জাহানের জন্য ভালো কিছু করুন!

আইডিসি এবং আইডিসি ফাউন্ডেশনের ব্যপারে  জানতে  লিংক০১ ও লিংক০২ ভিজিট করুন।

আইডিসি  মাদরাসার ব্যপারে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

আপনি আইডিসি  মাদরাসার একজন স্থায়ী সদস্য /পার্টনার হতে চাইলে এই লিংক দেখুন.

আইডিসি এতীমখানা ও গোরাবা ফান্ডে দান করে  দুনিয়া এবং আখিরাতে সফলতা অর্জন করুন।

কুরআন হাদিসের আলোকে বিভিন্ন কঠিন রোগের চিকিৎসা করাতেআইডিসি ‘র সাথে যোগাযোগ করুন।

ইসলামিক বিষয়ে জানতে এবং জানাতে এই গ্রুপে জয়েন করুন।